নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  

চায়ের রাজধানী শ্রীমঙ্গল যেমন চায়ের গন্ধে সতেজ। তেমনি শিল্প সংস্কৃতিতেও এটি সমৃদ্ধ একটি শহর। উপজেলা শহর হলেও এখানকার মানুষ অনেক শিল্পপ্রেমী ও সচেতন। সেই ধারাবাহিকতায় শ্রীমঙ্গল এর কিছু তরুণ-তরুণীদের উদ্যমী পরিশ্রমে গড়ে ওঠে ‘এসএফএস’ তথা “শ্রীমঙ্গল চলচ্চিত্র সংসদ।”

সম্প্রতি তারা “সিনেমা টক” নামে চলচ্চিত্র বিষয়ক ফেসবুুুক লাইভ শো-আড্ডাা’র আয়োজন শুরু করে। গত ১১ জুলাই,২০২০-এ অনুষ্ঠিত হয়ে যায় তাদের লাইভ শো’র প্রথম আয়োজন।

উক্ত আড্ডায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা, লেখক ও সংগঠক-“মৃদুল মামুন”। উল্লেখ্য তিনি ‘বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম’ ও ‘বাংলাদেশ ডকুমেন্টারি কাউন্সিল’ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক। অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনায় ছিলেন এসএফএস’র লোকজ সংস্কৃতি প্রকল্পের,প্রধান নির্বাহী পরিচালক- ‘অভিষেক সিংহ ’। লাইভটির কারিগরি সহায়তায় ছিলেন এসএফএস’র ১ মিনিট চলচ্চিত্র প্রকল্পের, প্রধান নির্বাহী পরিচালক- “কাজী এ. আর. শুভ”

পুরো অনুষ্ঠানটি সাজানো হয়েছিল তিনটি ভাগে।

নির্মাতা মৃদুল মামুন’র নির্মাতা হয়ে ওঠার পিছনের গল্প
তাঁর নির্মিত কিছু চলচ্চিত্রের অংশবিশেষ
তাঁর চলচ্চিত্র নির্মাণ, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও অন্যান্য

দুই ঘন্টার অনুষ্ঠানটি দর্শকপ্রিয়তায় ও তাঁদের নানাবিধ প্রশ্নোত্তরে প্রায় চার ঘন্টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে এসএফএস’র প্রতিষ্ঠাতা-“কে. এ. রহমান সুজন” লাইভে যুক্ত হন। তিনি এসএফএস পরিবারের পক্ষ থেকে অভিভাদন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন- “করোনা পরবর্তী সময়ে এসএফএস চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মশালার আয়োজন করবে ও নিয়মিতভাবে চলচ্চিত্র উৎসব করার চেষ্টা করবে। এতে তিনি সকলের সাহায্য কামনা করেন।”

পুরো আড্ডায় নির্মাতা মৃদুল মামুন’র তিনটি প্রশংসিত ও পুরষ্কারজয়ী চলচ্চিত্রের কিছু অংশবিশেষ দেখানো হয়। সেগুলো হলো-

১.কবুতরবাজ
২.সবাই একজাত
৩.গতিপট

চার ঘন্টার জমজমাট আড্ডার পর সঞ্চালক- অভিষেক সিংহ সকলের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। আরো বলেন যে- আগামীতে নতুন অতিথিদের সাথে চলচ্চিত্রের নানাবিধ বিষয় নিয়ে এসএফএস আরো কিছু লাইভ আড্ডার আয়োজন করবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে