মোঃ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা প্রতিনিধি:-

সত্যিকারে জেলেদের সন্ধানে কাজ করা শুরু করেছে মৎস্য ও প্রাণী সম্পাদক মন্ত্রণালয়।
পটুয়াখালী কুয়াকাটাসহ সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় জেলে তালিকা নিয়ে নানা অভিযোগের পর এবার শুরু হয়েছে প্রকৃত জেলেদের তালিকা তৈরীর কাজ। জেলে নয় এমন কার্ডধারীরা জেলের খাতায় নাম রয়েছে সেইসব ভুয়া জেলে তালিকা থেকে বাদ পরতে যাচ্ছে এ তালিকা প্রনয়নের মাধ্যমে। আগামী ১৫জুনের মধ্যে প্রকৃত জেলেদের তালিকা যাচাই বাছাইয়ের মৎস্য ও প্রানী সম্পদ মন্ত্রণালয়ে পাঠানের জন্য বলা হয়েছে।

মৎস্য ও প্রানী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মতে কুয়াকাটা পৌরসভাসহ উপকুলীয় এলাকার সমুদ্রগামী প্রকৃত জেলেদের তালিকা তৈরীর কাজ করছে পৌর কাউন্সিলর, মেম্বরসহ এর সাথে সংশ্লিষ্ঠরা।

তবে এ তালিকা তৈরী নিয়ে দ্বিমত রয়েছে জেলে সংগঠন কুয়াকাটা আশার আলো মৎস্য সমবায় সমিতির।
এছাড়া জেলে নামের অপেশাদারী লোকজন প্রভাবশালী বনে থাকায় প্রকৃত জেলেরা তাঁদের অধিকার থেকে বঞ্চিত থাকছেন।

কুয়াকাটা আশার আলো মৎস্য সমবায় সমিতির সভাপতি নিজাম শেখ সহ জেলে সংগঠনের সদস্যদের দাবি এই নামের তালিকায় তাদের নামই উঠুক যারা দিনরাত সমুদ্রের সাথে লড়াই করে দেশের অর্থব্যবস্থা উন্নত করে এবং সমুদ্রে সব সময় জেলে হিসেবে কাজ করে।
এদিকে প্রকৃত জেলেদের দাবি তথ্য সংগ্রহকালে কে কোন ট্রলারের জেলে এসব সম্পুর্ণ তথ্য থাকা দরকার। এমনকি ট্রলারের নাম, মালিকসহ জেলের মোবাইল নম্বর পর্যন্ত প্রশাসনের তালিকায় থাকা প্রয়োজন রয়েছে বলেও জেলেদের দাবি।

এবিষয়ে কথা শুরু হলে কুয়াকাটার পৌর মেয়র আঃ বারেক মোল্লা সাংবাদিকদের জানান,স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ওয়ার্ড ভিত্তিকি যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে প্রাথমিক ভাবে প্রকৃত জেলের তালিকা পৌরসভায় জমা দিবেন। তাদের তৈরী কৃত তালিকা আবার যাছাই বাছাইয়ের জন্য মৎস্য কর্মকর্তা,পৌর মেয়র,জেলে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকদের সমন্নয়ে গঠিত কমিটি যাছাই বাচাই করবেন। তালিকায় অর্ন্তভূক্ত সকল জেলেদের ডেকে প্রকৃত জেলে কিনা তাদের মাধ্যমে প্রকৃত জেলে সনাক্ত করা হবে। এ তালিকায় অপেশাদারদের অন্তভূক্ত হওয়ার কোন সূযোগ নেই

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে